সারা বছরই সুস্থ থাকতে পারবেন। এজন্য আপনাকে খুব দামি খাবার খেতে হবে না। আপনার প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় পর্যাপ্ত পরিমাণে শাকসবজি অন্তর্ভুক্ত করুন। ডায়াবেটিস, রক্তচাপ, চোখের সমস্যা, অ্যাসিডিটির মতো সমস্যা দূর হবে সহজেই। উচ্চ রক্তচাপ কমাতে শাকসবজির রয়েছে অনেক উপকারিতা । শাকসবজি খেলে হার্ট সুস্থ থাকে এবং ডায়াবেটিসের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। এগুলো ছাড়াও শাকসবজির উপকারিতা অনেক। আমাদের দেশে বিভিন্ন ধরনের সবজি আছে এবং এর উপকারিতাও আলাদা।

আপনি যদি সুস্থ থাকতে চান । তবে আপনাকে আপনার প্রতিদিনের পুষ্টির চাহিদা পূরণ করতে হবে। কিন্তু অনেকেই সেই হিসাব মানেন না বা বেশি খাবার খান। আবার আমাদের দেশের মানুষের মধ্যে একটি প্রচলিত ভুল ধারণা রয়েছে। যেকোনো ধরনের বিদেশি খাবারই বেশি পুষ্টিকর বলে মনে করেন তারা। কিন্তু স্থানীয় সবজির পর্যাপ্ত পুষ্টিগুণ রয়েছে। এবং এগুলি একেবারে আমাদের নাগালের মধ্যে এবং সারা বছর পাওয়া যায়। এর মধ্যে কিছু স্থানীয় শাকসবজি আমাদের দৈনন্দিন পুষ্টির অনন্য উৎস হতে পারে। পুষ্টিবিদরাও সুপারিশ করেন যে এগুলো আমাদের প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হোক। এবার জেনে নিন সারা বছর সুস্থ থাকতে প্রতিদিন কোন সবজি খাবেন।

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ

পটাশিয়াম রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। তাই আপনার খাদ্যতালিকায় পটাসিয়াম সমৃদ্ধ সবজি ।যেমন আলু, স্কুইড, বিট, গাজর, মিষ্টি আলু বা লাল আলু, মটর, পালং শাক, বাঁধাকপি, বাদাম অন্তর্ভুক্ত করুন। কাঁচা রসুন উচ্চ রক্তচাপও কমায়।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ

করলা, মেথি পাতা, কচি নিম পাতা, হেলেঞ্চা পাতা ডায়াবেটিসের ভেষজ ওষুধ। সাদা বেগুন, কলার থোড়া, মোচা, আলু, ডুমুর, পালং শাক, কাঁচা রসুনও বেশ উপকারী। কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ সবজি যেমন বিট, আলু, মিষ্টি আলু বা লাল আলু, ওটস এড়িয়ে চলুন।

চোখের সমস্যা নিয়ন্ত্রণ করা

ভিটামিন এ চোখের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ভিটামিন এ এর ​​অভাব রাতকানা রোগ হয় । তাই বিশেষ করে চোখের সমস্যা প্রতিরোধে। শিশুদের প্রথম থেকেই ভিটামিন এ সমৃদ্ধ সবজি খাওয়া উচিত। যেমন গাজর, বাঁধাকপি, লেটুস, পালং শাক, টমেটো, জায়ফল। মেথি, সরিষা, লাল শাক, সজনে পালংশাক, জিম পালংশাক।

শাকসবজির যেমন সুবিধা আছে তেমনি অসুবিধাও আছে। তাই  শাকসবজির উপকারিতা সবারই জানা উচিত ।